মডেলরা কীভাবে ‘শুকনা’ থাকেন! জেনে নিন তাদের পরামর্শ!

ম্যাগাজিন-পত্রিকা কিংবা টেলিভিশনে তাঁদের দেখে দীর্ঘশ্বাস ফেলেন অনেকেই। কীভাবে ‘শুকনা’ থাকেন মডেলরা। এই প্রশ্নই তো আপনার মনে। তবে কথাটা ঠিক ‘শুকনা’ নয়। এ হলো ‘ফিট’ থাকার ব্যাপার। মডেল কিংবা অভিনয়শিল্পীদের মতোই সুন্দর ত্বক, ঝরঝরে স্বাস্থ্য পেতে হলে অবশ্য পরিশ্রম করতেই হবে। ফিট থাকার জন্য তাঁরা মেনে চলেন কিছু কৌশল। সেসব কী, তা জানালেন তাঁরা নিজেরাই।

ডায়েটিং না পারলে ব্যালেন্সিং করা যেতে পারে (আজরা মাহমুদ): ‘সত্যি কথা বলতে, ঠিকমতো ডায়েট মেনে চলাটা একটু ব্যয়সাপেক্ষ। তাই আমি মনে করি, ডায়েট কন্ট্রোল করতে না পারলেও ব্যালেন্সিং করাটা জরুরি,’ বলছিলেন মডেল ও কোরিওগ্রাফার আজরা মাহমুদ। ডায়েটিশিয়ান একজনকে তাঁর বয়স, স্বাস্থ্য, জীবনযাপনের ধরন—সব বিবেচনা করে ডায়েটের তালিকা দিয়ে থাকেন। এই তালিকায় অনেক রকম খাবার থাকে, যা একটু পরপর ঠিক সময় ধরে খেতে হয়। মডেল বা গণমাধ্যমকর্মীদের জীবনযাত্রায় এটি ঠিকঠাক মেনে চলাটা একটু কঠিনই বটে। তাই আজরা মনে করেন, খাবার গ্রহণে ভারসাম্য রক্ষা করা বা ব্যালেন্সিং হতে পারা ফিট থাকার একটি ভালো কৌশল। অর্থাৎ কোনো কিছু একটু বেশি খাওয়া হয়ে গেলে, আরেক বেলা কম খেয়ে সেটা পুষিয়ে নেওয়া। ফাস্টফুড, পনির, মাখন, চকলেট ও চিনি স্বাস্থ্য মোটা করে ফেলে, সে ধরনের খাবার এড়িয়ে চলা। বিয়ের পর নাকি আজরার ওজন চার কেজি বেড়ে গিয়েছে। এখন তাই অনুসরণ করছেন লো কার্ব ডায়েট। মানে, শর্করা-জাতীয় খাবার কম খেতে হচ্ছে তাঁকে। এখন র্যাম্পে কাজ কমিয়ে দিয়েছেন, তাই বলেই নাকি ঠিকমতো ডায়েটের সব নিয়মকানুন মেনে চলতে পারছেন। প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠেই কুসুম গরম পানিতে লেবুর রস ও মধু মিশিয়ে খান। এরপর নাশতায় দুধ-সিরিয়াল অথবা একটি রুটি ও ভাজি এবং এক দিন পরপর কুসুম ছাড়া ডিম খান। এর কিছুক্ষণ পর ক্ষুধা লাগলে ফল খান। ফলের মধ্যে কলা শরীর মোটা করে, স্লিম থাকতে চাইলে এটি এড়িয়ে গেলেও শরীরে শক্তি পাওয়ার জন্য এটি খুব ভালো। আজরা জানালেন, যেদিন তাঁর অনেক বেশি কাজ থাকে, সেদিন ফলের তালিকায় রাখেন কলা। বেলা দুইটার দিকেই দুপুরের খাবার পর্ব সেরে ফেলেন এক কাপ ভাত, প্রচুর সবজি ও মাছ দিয়ে। সপ্তাহে এক দিন থাকে মুরগি। বিকেলে খান গ্রিন টি, বিস্কুট আর একটি ফল। রাতের খাবারে রুটি, সবজি, ডাল। রোজ ৪০ মিনিট করে হাঁটেন তিনি। অ্যারোবিকসও করেন। এই খাদ্যতালিকা অনুসরণের ফাঁকে সপ্তাহে এক দিন নিজেকে ছুটি দেন আজরা। শুক্রবার ইচ্ছেমতো ঘুমান, ওদিন যা খেতে ইচ্ছা করে তা-ই খান। মিষ্টি তাঁর খুব প্রিয়। মোটা হয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় চাইলেও এটি বেশি খেতে পারেন না, শুক্রবার তাই মনের সাধ মিটিয়ে মিষ্টি খান বলে জানালেন। আজরার মতে, ক্ষুধা পাওয়ার আগেই খেয়ে নেওয়া ভালো। তাহলে কম খাওয়া হয়। আর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো স্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রা। তাই পরিমিত ঘুমেরও দরকার।

অনেক ভাত খাই (জান্নাতুল পিয়া): একহারা বা স্লিম শারীরিক গঠন পাওয়ার জন্য অনেকে প্রথমেই খাদ্যতালিকা থেকে ভাত বাদ দিয়ে দেন। ভাত যাঁদের খুব প্রিয়, তাঁরাও একবেলা ভাত খেয়ে অন্যবেলা রুটি বা অন্য খাবার খেয়ে থাকেন। কিন্তু মডেল ও অভিনয়শিল্পী পিয়া এ ক্ষেত্রে একদম আলাদা। ভাত তাঁর খুব পছন্দ, ইচ্ছেমতো ভাত খান। তারপরও এমন ছিপছিপে থাকেন কী করে? জানতে চাইলে পিয়া বলেন, তিনি নাকি ঘুমানও অনেক বেশি। তবে ভাত ও ঘুম কোনোটাই তাঁকে মোটা করতে পারে না। শারীরিক গঠনটাই এমন হওয়াতে বেঁচে গেছেন। তবে তিনি আইসক্রিম, চকলেট-জাতীয় খাবার পছন্দ করেন না বলেই অন্যদিক থেকে মিষ্টি ও শর্করা-জাতীয় খাবার কম খাওয়া হয়। এ জন্য ভাত একটু বেশি খেলেও তাতে শরীরের ওপর কোনো প্রভাব পড়ে না। কোমল পানীয় এড়িয়ে চলেন। ভাজাপোড়া ও তেল-চর্বিযুক্ত খাবার খেয়ে থাকেন খুব মেপে। নিয়মিত ফ্রি হ্যান্ড শরীরচর্চা করেন। জিমেও যান। তিনি মনে করেন, কোনো বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলে ডায়েটের তালিকা অনুসরণ করা ভালো। কাজের জন্য কখনো তাঁকে স্বাস্থ্য একটু ভালো করতে হয়, আবার কখনো হতে হয় একেবারে হাড়-জিরজিরে। যখন যেমন থাকা চাই, সেটা বুঝেই তাঁকে ডায়েট করতে হয় বলে জানালেন।

নিয়মিত শরীরচর্চা করি (শাওন খান): মডেলিং, চাকরি, ব্যবসা—সবদিক সামলেও নিয়মিত শরীরচর্চা করেন শাওন খান, নিজেকে ফিট রাখার জন্য। তাঁর মতে, কেবল মডেলদেরই নয়, সুস্থ ও নীরোগ থাকার জন্য সবারই কিছু না কিছু শরীরচর্চা করা দরকার। প্রতিদিন ফ্রি হ্যান্ড কিছু শরীরচর্চা করা হয়, এ ছাড়া ইউটিউবে ভিডিও দেখে অ্যারোবিকস বা কার্ডিও শরীরচর্চা করেন তিনি। সপ্তাহে অন্তত চার দিন জিমে যাওয়ার চেষ্টা করেন। স্কিপিং, বক্সিং, সাঁতার করে থাকেন নিয়মিত, তবে সব এক দিনে নয়। তিনি শর্করা-জাতীয় খাবার কম খান। ভাত একেবারে বাদ না দিয়ে এক কাপ করে খান, সঙ্গে থাকে প্রচুর পরিমাণে শাকসবজি। কম তেলযুক্ত খাবার খেয়ে থাকেন শাওন। জানালেন, জলপাই তেলের খাবার খাওয়ার চেষ্টা করেন, ফাস্টফুড একেবারেই খান না। গ্রিন টি স্বাস্থ্যের জন্য খুব ভালো। তাই তিনি চায়ের মধ্যে এটিই খান। ঘুম ঠিক না হলে কিছুই ঠিকমতো হয় না বলে মনে করেন শাওন। এ জন্য কাজের অনেক চাপ থাকা সত্ত্বেও রোজ অন্তত সাত ঘণ্টা ঘুমিয়ে তরতাজা থাকার চেষ্টা করেন। শুয়ে-বসে থেকে মেদ জমাতে চান না। তাই কাজের মধ্যে থাকেন, হাঁটাহাঁটি করেন। ‘নিজের জন্য কী ধরনের খাবার গ্রহণ করা ঠিক হবে, কোনটি খাওয়া যাবে না এবং কেমন শরীরচর্চা করা যেতে পারে—এসব তথ্য ইন্টারনেট ঘাঁটাঘাঁটি করে জেনে নিই,’ বলেন শাওন।

About the Author

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>