প্রতি রাতে এক গ্লাস খাবেন, সহবাস করতে পারবেন লম্বা সময়

দ্রুত বীর্যপাত, যৌন শক্তি বাড়ানো, পেনিসের ছোট বড় সমস্যা প্রভৃ‌তি প্রশ্নগুলোর অ‌ধিকাংশ তরুণ-যুব সমা‌জের কাছ থেকে আ‌সে। যৌনতা সম্প‌র্কে অনলাইন দু‌নিয়ায় যে ভাবে মনগড়া এবং  উদ্ভট তথ্য দিয়ে মানুষ‌কে প্রতা‌রিত করা হচ্ছে; তাতে সমস্যা না থাকলেও সমস্যার কথা ব‌লে যৌন জীবন‌কে ভয়াবহ ক্ষ‌তির সম্মুখীন কর‌ছে। যার ফ‌লে স্বাস্থ্য ও যৌনতার জটিল জ‌টিল সমস্যায় আক্রান্তের হার বাড়ছেই।  যৌন শক্তি বাড়ানোর স্থায়ী ও স্বাস্থ্যসম্মত কোন উপায় আজ পর্যন্ত বের হয় নাই। এটা সবাই প্রাকৃ‌তিকভাবেই পেয়ে থাকে। বাকিটা মহান আল্লাহর ইচ্ছা। কিভাবে যৌন শক্তি বাড়ানো যায়? যে‌হেতু যৌনতা প্রকৃ‌তি প্রদত্ত আল্লাহর এক বি‌শেষ নেয়ামত সে‌হেতু প্রকৃ‌তিগতভা‌বেই এর কিছুটা সমাধানও সম্ভব। যেমন :

ডিম :  ডিম সিদ্ধ হোক বা ভাজি, সব ভাবেই ডিম যৌন স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী একটি খাবার। ডিমে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি-৫ ও বি-৬ আছে যা শরীরের হরমোনের কার্যক্রম ঠিক রাখে এবং মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করে। প্রতিদিনের সকালের নাস্তায় একটি করে ডিম রাখুন। এতে আপনার শরীর শক্তি পাবে এবং যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।

দুধ :  যৌন শক্তি বাড়া‌নোর জন্য দুধের ভূমিকা অতুলনীয়। বিশেষ করে ছাগলের দুধ পুরুষের যৌন শক্তি বৃদ্ধিতে অসাধারণ ভুমিকা রাখে। দুধ রতিশক্তি সৃষ্টি করে দেহের শুস্কতা দূর করে এবং দ্রুত হজম হয়ে খাদ্যের স্থলাভিষিক্ত হয়ে যায়, বীর্য সৃষ্টি করে, চেহারা লাল বর্ণকরে, দেহের অপ্রয়োজনীয় দূষিত পদার্থ বের করে দেয় এবং মস্তিস্ক শক্তিশালী করে।

রঙিন ফলমূল : যৌন জীবন ভালো রাখতে হ‌লে প্রতিদিন খাবার তালিকায় রঙিন ফলমূল রাখুন। আঙ্গুর, খেজুর, কলা, কমলা লেবু, তরমুজ, ইত্যাদি ফল যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য অত্যন্ত উপকারী। প্র‌তি‌দিন ৫\৭টি খেজুর সকা‌লের নাস্তা হি‌সে‌বে খান আর যৌনতায় জাদু দেখুন।
ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাসের মেডিকেল টিমের গবেষণা অনুযায়ী একজন পুরুষের প্রতিদিনের খাবার তালিকায় অন্তত ২০০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি থাকলে তার স্পার্মের কোয়ালিটি উন্নত হয়। আবার টেক্সাসের A&M ইউনিভার্সিটির মতে তরমুজ শরীরে যৌন উদ্দীপনা বৃদ্ধি করে। তারা যৌন উদ্দীপক ওষুধ ভায়াগ্রার সাথে তরমুজের তুলনা করেছেন।

রসুন : যৌন অক্ষমতা দূর কর‌তে রসুন খুব ভালো কাজ ক‌রে। রসুন কে ‘গরীবের পেনিসিলিন’ বলা হয়। কারণ এটি অ্যান্টিসেপ্টিক এবং immune booster হিসাবে কাজ করে। হারা‌নো যৌন ইচ্ছা ফিরি‌য়ে আনতে এর ব্যবহার খুবই কার্যকরী। কোন রোগে বা কার‌ণে যৌন ইচ্ছা কমে গেলে, তা পুনরুজ্জী‌বিত ক‌রে। এছাড়াও যৌন ইচ্ছা খুব বেশী হয় বা তা মাত্রাতিরিক্ত হয় যার অত্যধিক প্রয়োগ তার নার্ভাস সিস্টেমের ক্ষতি করতে পারে এমন ক্ষেত্রেও রসুন ভারসাম্য অা‌নে।

প্রতিদিন তিন থে‌কে চার‌টি রসুনের কোয়া চিবিয়ে খান। যৌন ইচ্ছা কমে গিয়ে থাকলে তা বৃদ্ধি পাবে। এ ছাড়া গমের তৈরি রুটির সঙ্গে রসুন মিশিয়ে খেলে তা শরীরে স্পার্ম উৎপাদন এবং সুস্থ্য স্পার্ম তৈরিতে খুব কার্যকর।

পেঁয়াজ : কাম-উত্তেজক ও কামনা বৃদ্ধিকারী হিসাবে পেঁয়াজ বহুদিন থেকে ই ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

সাদা পেঁয়াজ পিষে নিয়ে তাকে মাখনের মধ্যে ভালো করে ভেঁজে নিয়ে তা প্রতিদিন মধুর সঙ্গে খেলে তা থেকে উপকার পাওয়া যায়। কিন্তু একটি বিষয় মনে রাখবেন, এটি খাওয়ার আগে ঘণ্টা দুয়েক সময় আপনার পেট খালি রাখবেন। এইভাবে প্রতিদিন খেলে দ্রুত বীর্যপাত বা ঘুমের মধ্যে ধাতুপতন (যাকে spermatorrhea বলা হয়) ইত্যাদি সমস্যার সমাধান হয়। এছাড়া পেঁয়াজের রসের সঙ্গে কালো খোসা সমেত বিউলির ডালের গুঁড়ো সাত দিন পর্যন্ত ভিজিয়ে রেখে তাকে শুকিয়ে নিন। এটির নিয়মিত ব্যবহার কাম-উত্তেজনা এবং শারীরিক মিলনকালীন সুদৃঢ়তা বজায় রাখবে।

মধু :  মধুর রয়েছে অসংখ্য উপকারিতা। সকালে খালি পেটে মধু খে‌লে মস্তিস্ক শক্তি লাভ করে, স্বাভাবিক তাপে শক্তি আসে, রতি শক্তি বৃদ্ধি হয়, প্রস্রাব স্বাভাবিক হয়, গ্যাস নির্গত হয় ও ক্ষুধা বাড়ায়। মধু হাজারো রকম ফুল ও দানার নির্যাস। দুনিয়ার সকল গবেষকগণ একত্রিত হয়ে এমন নির্যাস প্রস্তুত করতে চাইলেও কখনো বানাতে পারবে কিনা এ বিষয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে।

বাদাম ও বিভিন্ন বীজ : কুমড়োর বীজ, সূর্যমূখীর বীজ, চিনা বাদাম, কাজু বাদাম, পেস্তা বাদাম ইত্যাদিতে শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাট আছে এবং এগুলো শরীরে উপকারী কোলেস্টেরল তৈরী করে। সেক্স হরমোন গুলো ঠিক মতো কাজ করার জন্য এই কোলেস্টেরল অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। তাই প্রতিদিন অল্প করে হলেও বাদাম খাওয়ার চেষ্টা করুন। এতে আপনার যৌন স্বাস্থ্য ভালো থাকবে। কাজেই যৌন শ‌ক্তি বাড়া‌নোর দু‌শ্চিন্তা বাদ দিন। যৌনতা বিষয়ে সক‌লের স‌ঠিক জ্ঞান থাক‌তে হ‌বে তাহ‌লে সকল প্রকার বিভ্রান্তি থে‌কে মু‌ক্তি সম্ভব। যৌন সমস্যার একেবারে প্রথম ধাপে আপনি বাড়িতে এই পদ্ধতি গুলি মেনে চলুন; সমাধান হবেই।

সবাই এখন যা পড়ছে :-

খুব বেশি পর্ন দেখেন? জানেন কী ক্ষতি করছেন নিজের!

ব্যস্ত জীবনের মধ্যে পর্ন দেখার জন্য অনেকেই সময় বের করে নেন। অনেকেই দিনান্তে পর্ন দেখেন সাময়িক আনন্দলাভের আশায়। কিন্তু জানেন কি, বেশি মাত্রায় পর্ন দর্শন কতটা সর্বনাশ করছে আপনার? সমীক্ষা করে দেখা গিয়েছে, যাঁরা নিয়মিত পর্ন দেখেন, তাঁরা বিভিন্ন ধরনের সমস্যায় ভুগছেন। পৃথিবীর একাধিক দেশের পুরুষ, নারীর উপর এই সমীক্ষা চালিয়ে দেখা গিয়েছে ভয়ঙ্কর সব সমস্যার জন্ম দিচ্ছে এই অভ্যাস। মানসিক বিকৃতির জন্ম দেয়। অতিরিক্ত পর্ন মস্তিস্কের উপর চাপ ফেলে। স্বাভাবিক বিচক্ষণতা লুপ্ত হতে থাকে। বাস্তব থেকে দূরে সরিয়ে দেয় মানুষকে। বাস্তব এবং অবাস্তবের মধ্যে এক অদ্ভুত গুলিয়ে দেওয়া পরিস্থিতি তৈরি করে।

ক্রমশ নিজের ব্যক্তিগত আবেগ, ইমোশনের উপর থেকে নিয়ন্ত্রণ হারাতে শুরু করে। হঠাৎ রেগে যাওয়াও এক অন্যতম লক্ষণ। সর্বোপরি একটা সুস্থ জীবন থেকে আপনাকে ক্রমশ দূরে সরিয়ে নিয়ে যাবে আপনার পর্ন-দর্শন। শুধু জীবনসঙ্গী নয়, সন্তানদের থেকেও দূরে সরিয়ে নিয়ে যাবে আপনাকে। কারণ অতিরিক্ত পর্ন দেখলে পৃথিবীর স্বাভাবিক, নিষ্পাপ আনন্দ আপনি উপভোগ করতেই ভুলে যাবেন ধীরে ধীরে। ব্যক্তিগত জীবন অসুখী করে তোলে। সঙ্গীকে সুখী করা বা সঙ্গীর থেকে আনন্দ পাওয়ার ক্ষেত্রে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায় আপনার এই অভ্যাস।

About the Author

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>