অ্যালার্জি সারাতে অব্যর্থ চিকিৎসা পদ্ধতি, শতভাগ কার্যকর

কোথাও ঘুরতে গিয়েছেন কিংবা রেস্তরাঁয় সুস্বাদু খাবার খাচ্ছেন। হঠাৎ করেই গোটা শরীর ভরে গেল এলার্জিতে। যা বেশ কষ্টদায়ক৷ খুব সাধারণ একটা সমস্যা থেকে অস্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া দেখা দেয় অনেকসময়৷ জীবনযাপন পদ্ধতি, দূষণ, খাওয়াদাওয়া অ্যালার্জির অন্যতম কারণ৷ একবার শুরু হলে কমে না সহজে৷ অ্যালার্জি শরীরের একটি অ্যাবনর্মাল রিঅ্যাকশন৷অ্যালার্জির উৎস থেকে দূরে থাকা সমস্যা মুক্তির একমাত্র পথ নয়৷ একগাদা ট্যাবলেট খেলেও এ রোগ সারে না৷ তবে হোমিওপ্যাথিতে অ্যালার্জির চিকিৎসা খুবই সফল৷ নিয়মিত ওষুধ খেলেই অ্যালার্জি সম্পূর্ণ সারিয়ে তোলা যায়৷ হোমিওপ্যাথিতে অ্যালার্জি মুক্তির কথা জানালেন হোমিওপ্যাথ বিশেষজ্ঞ ডা. এস জেড খান৷ লিখলেন জিনিয়া সরকার।

খাবারে অ্যালার্জি: বেশিরভাগ প্রোটিন জাতীয় খাবার, ডিম, চিংড়ি, বেগুন, ওল থেকেই অ্যালার্জি হয়৷ মাংস, ভাজা খাবার খেলেও অ্যালার্জি হয়ে থাকে৷

উপসর্গ: খাবারে অ্যালার্জি থাকলে সেই খাবার খাওয়ার পরেই ব়্যাশ বের হয়৷ ওষুধ থেকে অ্যালার্জিতেও এই সমস্যা হয়৷ দীর্ঘদিন এই ব়্যাশ থাকলে তা থেকে একজিমা হয়ে যেতে পারে৷ অনেক সময় খাবার হজম হয় না৷ ডায়ারিয়া, বমিও হতে পারে৷

কখন কোন ওষুধ: ত্বকে ব়্যাশ, বমি, ডায়ারিয়া হলে খেতে হবে Ars.Alb 30৷ দু-তিনদিন ধরে দিনে তিন বার খেতে হবে৷ যেকোনও খাবার থেকেই অ্যালার্জি হলে এই ওষুধ কাজ করে৷ পুরোপুরি ঠিক করতে দীর্ঘ চিকিৎসার প্রয়োজন৷ এক্ষেত্রে খেতে হবে Cal Carb অথবা Thuja৷

ধুলোয় অ্যালার্জি: হাওয়ায় মিশে থাকা ধুলিকণা, ধূমপান, বিভিন্ন সুগন্ধি, রান্নার গন্ধ, ফুলের রেণু থেকে অ্যালার্জি হয়৷ এক্ষেত্রে অ্যালার্জি হলে ত্বকে ব়্যাশ বের হয়৷ বায়ুদূষণ থেকে অ্যালার্জিক রাইনাইটিস হয়৷ অ্যালার্জিক রাইনাইটিস বৃদ্ধি পেলে ব্রঙ্কাইটিসের আকার নেয়৷ বাচ্চাদের এই সমস্যা বেশি হয়৷ বিশেষ করে যাদের রোগ প্রতিরোধ শক্তি কম হলে ও সিজারিয়ান শিশুর এই সমস্যা সবচেয়ে বেশি হয়৷

চিকিৎসা: ফুল বা যে কোনও চড়া গন্ধ থেকে অ্যালার্জি হলে খেতে হবে Sang 30৷ সারাদিনে তিন-চারবার দু’তিন দিন ধরে খেলেই উপকার৷ খাবারের গন্ধ থেকে বমি হলে খান Sep, Colch৷ ধুলো, সিগারেটের ধোঁয়া থেকে অ্যালার্জি হলে খান Poth, House Dust, Blata.o. ৷ সারা জীবনের মতো ডাস্ট অ্যালার্জি থেকে মুক্তি পেতে খেতে হবে Sulph, Tub৷

ড্রাই এয়ার অ্যালার্জি: গরমকালে লু-এর দাপটে বিভিন্ন ধরনের অ্যালার্জির প্রবণতা বাড়ে৷ সূর্যের রশ্মি থেকে ত্বকে অ্যালার্জি হয়৷ ত্বক পু্ড়ে কালো হয়ে যায়৷ ব়্যাশ বেরয়, ত্বক জ্বালা করে৷ এক্ষেত্রে খান Canth, Sol৷ ঘামাচির সমস্যা থেকে বাঁচতে খান Sygiyz৷ লু লেগে জ্বর হলে সবচেয়ে উপকারি ওষুধ Nat.Carb ও Belladonna৷

শীত-বর্ষার অ্যালার্জি: বর্ষার স্যাঁতস্যাতে আবহাওয়ায় বা শীতকালে ঠান্ডা হাওয়া থেকেও অ্যালার্জিক রিঅ্যাকশন হয়৷ এক্ষেত্রে ব়্যাশ, সর্দি, কাশি, জ্বর হয়৷ ঠান্ডা হাওয়া থেকে এমন হলে খেতে হবে Acon৷ বর্ষায় জলীয় আবহাওয়ায় (বৃষ্টিতে ভিজে গেলে, গায়ে ঘাম বসলে) অ্যালার্জি হলে সবচেয়ে উপকারী All.cep, Dul, Rhus.t.৷ সুত্র- সংবাদ প্রতিদিন

About the Author

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>