সর্দি-কাশির সমস্যা সারাতে অব্যর্থ এই ওষুধটি, শতভাগ কার্যকর !

নিজের আশেপাশে লক্ষ্য করুন। দেখবেন টুকিটাকি ঠাণ্ডা-সর্দি-কাশিতে ভুগছেন অনেকেই। সব বয়সের এবং পেশার মানুষকেই কাবু করে ফেলেছে এই বৃষ্টি- এই রোদের অদ্ভুত আবহাওয়াটি। এ সময়ে বারবার ওষুধ খাওয়ার কোনো মানেই হয় না। কিন্তু সারাক্ষণ নাক দিয়ে পানি পড়ছে, খুকখুক করে কাশছেন- সেটাও মেনে নেওয়া যায় না। বিরক্তিকর সর্দি-কাশি থেকে মুক্তি পেতে আপনি নিজেও তৈরি করে নিতে পারেন ঘরোয়া একটি প্রতিকার। এই টোটকা ওষুধটি যেমন সর্দি-কাশি দূরে রাখবে, তেমনি তা আপনার ইমিউন সিস্টেম শক্তিশালী করে ভবিষ্যতেও এমন অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি কমিয়ে আনবে। চলুন দেখে আসি এই ঘরোয়া প্রতিকার তৈরির উপায়টি।

প্রাকৃতিক উপাদানের জাদু

অনলাইনে বিভিন্ন হোম রেমেডি সাইট আছে যেখানে আপনি জানতে পারবেন “হানি-জিনজার-লেমন রেমেডি” নামের একটি মিশ্রণের কথা। ধারণাটা বেশ সহজ সরল। ঠাণ্ডা লাগলে এমনিতেই মায়েরা বাচ্চাদেরকে একটু মধু খাইয়ে দেন, কারণ মধু প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়োটিক। লেবুর ভিটামিন সি আপনার ইমিউন সিস্টেমকে শক্তিশালী করে এবং আদা প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়োটিক হিসেবে কাজ করে। সুতরাং এই সবগুলো উপাদান একত্রিত করতে পারলে আপনি সবগুলোর উপকারিতাই পাবেন একসাথে। আমি নিজে এই ঘরোয়া প্রতিকারটি ব্যবহার করি নিয়মিত।

এক্ষেত্রে দেশীয়, গ্রাম থেকে সংগ্রহ করা মধু ব্যবহার করাটা উপকারী। গাড় রঙের মধু সংগ্রহ করার চেষ্টা করুন। তা করতে না পারলে যে কোন মধু ব্যবহার করতে পারে। এর পাশাপাশি টাটকা আদা ও লেবু ব্যবহার করুন। আমি এতে আরেকটি উপাদান ব্যবহার করি আর তা হলো লবঙ্গ। খুব কাশি হতে থাকলে মুখে একটা লবঙ্গ রেখে মাঝে মাঝে চিবালে তা উপকারে আসে।

উপকরণ

আধা কাপ মধু

একটি লেবু

আধা ইঞ্চি পরিমাণ আদা

কয়েকটি লবঙ্গ

প্রণালী

লেবু স্লাইস করে নিন এবং আদা কুচি করে নিন। এরপর সবগুলো উপকরণ একসাথে মিশিয়ে নিন একটি পাত্রে। এবার এই পাত্রটি ঢাকনা চাপা দিয়ে রেখে দিন। কয়েক ঘন্টা পর মিশ্রণটি পাতলা হয়ে যাবে। তখন আপনি এই মিশ্রণ এক চা চামচ মিশিয়ে নিতে পারেন এক কাপ গরম পানিতে এবং তা পান করতে পারেন। এই মিশ্রণে ডুবানো আদা, লেবু এবং লবঙ্গও চিবিয়ে খেতে পারেন, এতে উপকার পাবেন দ্রুত। এই মিশ্রণ একটি কাঁচের জারে বা টিফিন বাটিতে ঢাকনা বন্ধ করে ব্যবহার করতে পারেন ২-৩ দিন।

যেসব সমস্যায় কাজে আসে

১) হাঁচি-কাশি থামাতে

২) সর্দি দূর করতে

৩) গলা ব্যথা এবং খুসখুসে ভাব দূর করতে

৪) মাথাব্যথা, কান ব্যথা কমিয়ে আনতে

দ্রষ্টব্য: এক বছরের কম বয়সী শিশুকে এই ওষুধ দেওয়া যাবে না। এছাড়া যাদের অ্যাসিডিটি আছে তারা নিজেদের ডাক্তারের সাথে কথা বলে নিতে পারেন এটা খাওয়ার আগে কারণ এতে লেবুর রস এবং আদা আছে যা অ্যাসিডিটি বাড়াতে পারে। 

দেখে নিতে পারেন এই ওষুধটি তৈরির একটি ভিডিও-

About the Author

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>